Friday, March 20, 2015

স্বাস্থ্যসম্মত ভাবে খাবার কি করে রঙ্গিন করবেন।

অপরাজিতা ফুল ব্যবহার করে তৈরি করা হয়েছে নীল নুডলস

আজকের বিষয় কিভাবে খাবার রঙ্গিন করবেন। আজ খাবার নীল কিংবা আকাশী রং তৈরি কৌশল জানাব।


 খাবারে কৃত্রিম রং ব্যবহারে কিডনি, হৃদপিন্ড, অস্থিমজ্জাসহ সমগ্র দেহযন্ত্রের ক্ষতি হয়। এটা সবাই  জানেন। তারপরও রঙ্গিন খাবারের প্রতি কিছুটা আকর্ষণ থাকেই। আর এই আকর্ষনের কারণে বিষাক্তটেক্সটাইল কালারগুলো আমাদের বাসা ও হোটেলগুলোর রান্না ঘরে স্থান করে নিয়ে। তাছাড়া বাজারে যতই ফুড গ্রেড কালার স্বাস্থ্যকর বলা হোক না কেন তা স্বাস্থ্যকর নয়। খাদ্য ও পানীয়ে ব্যবহৃত কৃত্রিম রংগুলো বিভিন্নভাবে স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে।




অপরাজিতা ফুলের রং ব্যবহার করে নীল জর্দা,আমি ভাবছি রান্না নিয়ে একটা বই লিখব। তার প্রাথমিক চেষ্টা।
ব্যতিক্রম কেবল অধিকাংশ প্রাকৃতিক রং, যেগুলো অধিকাংশই স্বাস্থ্যের ক্ষতি করে না। প্রাকৃতিক রং সাধারণভাবে দোকানে কিনতে পাওয়া যায় না। এগুলো থাকে বিভিন্ন ফল ও শাকসবজিতে।

তবে ক্ষতি কি যদি নিজেই তৈরি করা যায খাবারে ব্যবহারের রং। নিজের তৈরি রঙে খাবার রাঙিয়ে পরিবেশন করুন পরিজনের মাঝে।

পোলাও শুধু সাদা হবে তা নয়, চাইলে আপনি একটু নীলের ছোঁয়া দিতে পারেন । তেমনি ভাবে ভাত,জর্দা, নুডলসসহ বিভিন্ন খাবারে নীল কিংবা আকাশী রংয়ের ছোঁয়া আনতে পারেন। অপরাজিতা ফুল ব্যবহার করে।

বাসার টবে একটা অপরাজিতার বীজ বুনে দিন। তারপর মাসখানিকের মধ্যে ফুল পাবেন। ফুলগুলো একটু কাঁচা থাকা অবস্থায় সংগ্রহ করে রোদে শুকিয়ে নিন। এবার একটি সচ্ছ কাপ বা গ্লাসে একটু গরম পানি নিন এবং শুকনো অপরাজিতা ভিজিয়ে রাখুন। হয়ে গেল স্বাস্থ্যকর খাবার যোগ্য নীল রং । এবার পরিমাণ মত রং মিশিয়ে নীল/আকাশী জর্দা, নীল/আকাশী ভাত, নীল/আকাশী নুডলস, নীল সরবত তৈরি করতে পারেন।

এটি বিখ্যাত অপরাজিতা ফুল
শুকনো অপরাজিতার তৈরি নীল চা আপনার পরিবেশনে ভিন্নতা আনবে।তাছাড়া মহা ঔষধ হিসেবে কাজ করবে শুষ্ককাশি আক্রান্ত অতিথিদের জন্য।

চোখের ক্ষুদা বলে একটা কথা আছে। যার পেট পূর্ণ থাকবে আশা করি সেও একটু চেখে দেখবে আপনার রান্না। যতই দূর্নাম থাকুক না কেন আপনার রান্না নিয়ে অপরাজিতা আপনাকে জয়ই করবেই।


আগামীতে খাবার রঙিন করার আরো কৌশল বিনামূল্যে শিখানো হবে।

3 comments: